ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ | ০৩ : ০২ মিনিট

মুক্তিযোদ্ধা মংশোয়েঅং মারমা প্রকাশ জুলু মারমা

মুক্তিযোদ্ধা মংশোয়েঅং মারমা প্রকাশ
জুলু মারমা

গতকাল বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) দুপুর সাড়ে ১২টা বীর মুক্তিযোদ্ধা  মংশোয়েঅং মারমা প্রকাশ জুলু মারমা মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। তিনি দীর্ঘ দিন ধরে বার্ধক্যজনিত রোগে ভূগছিলেন। আজ শুক্রবার দুপুরের পর খাগড়াছড়ি জেলা শহরের বটতলীস্থ মহাশ্মশানে বীর মুক্তিযোদ্ধা মংশোয়েঅং মারমা প্রকাশ জুলু মারমা’র দাহক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

মৃত্যু খবর শুনতে পেয়ে শত শত মানুষ তাঁকে শেষ দেখা করার জন্য তাঁর নিজ বাড়িতে ভিড় করেন। পুরো খাগড়াছড়ি জুড়ে সর্বস্তরে শোকের ছায়া নেমে আসে।

মংশোয়েঅং মারমা প্রকাশ জুলু মারমা ১৯৩৭ সালে খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন করেন। মুক্তিযুদ্ধের সময়ে তিনি ৩৪ বছরের একজন তরজা তরুণ।  তৎকালিন দেশের ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখে চুপ করে থেমে থাকেননি। রণাঙ্গনে রাইফেল নিয়ে জীবন বাজি রেখে সম্মুখসমরে অংশ নেন। তিনি রামগড়-মানিকছড়িসহ কয়েকটি যুদ্ধে অংশ নেন।

মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ী হয়ে তিনি নেমে পড়ে দেশ গড়ার কাজে।  সৎ ও নিষ্ঠার সঙ্গে আজীবন কাজ করে গেছেন তিনি। কর্মজীবনে কৃষি বিভাগে কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। নির্লোভ-অমায়িক ও
বন্ধুবৎসল মানুষ হিসেবে সবার কাছে পরিচিতি ছিলেন।

খাগড়াছড়ি জেলা সংস্থার সাধারন সম্পাদক ও পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য জুয়েল চাকমা বলেন, ভীষণ ক্রীড়ামোদী এই মানুষটি জেলায় প্রবীন সমাজের গুরুত্বপূর্ণ অভিভাবক ছিলেন। রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা হয়েও কখনো নিজের জন্য কিছু চাননি।

প্রয়াতের মেঝ সন্তান ও খাগড়াছড়ি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অংপ্রু মারমা জানান, শুক্রবার দুপুরের পর খাগড়াছড়ি জেলা শহরের বটতলীস্থ মহাশ্মশানে বীর মুক্তিযোদ্ধা মংশোয়েঅং মারমা প্রকাশ জুলু মারমা’র দাহক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

Comments

comments