ঢাকা, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ | ০৭ : ২৭ মিনিট

6

বিশ্বমিল উৎসবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক দল। ছবি : সংগৃহীত

শেষ হলো তুমুল জাঁকজমকপূর্ণ ‘বিশ্বমিল-২০১৬’ আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক উৎসব। ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের সনিপাতে অবস্থিত ওপি জিন্দাল গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি ছিল তিনদিন ব্যাপী এই উৎসবের আয়োজক। গত ১৪ অক্টোবর শুরু হয়ে ১৬ অক্টোবর উৎ​সবের সমাপ্তি ঘটে।

উৎসবে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ও রানারআপ হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। তৃতীয় স্থান লাভ করেছে পাকিস্তানের পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয়। বুয়েটের চারটি সংগঠন মুর্ছনা, ড্রামা সোসাইটি, ফিল্ম সোসাইটি ও ডান্স ক্লাব থেকে অংশ নেয় ৩৩ জন সদস্য এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অংশ নেয় ১৫ জন সদস্য।

পুরো উৎ​সবের বিভিন্ন পরিবেশনায় অংশ নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ৩টি বিভাগে প্রথম ও ৩টি বিভাগে দ্বিতীয় হয়েছে। অন্যদিকে বুয়েট ২টি বিভাগে প্রথম ও ১টি বিভাগে হয়েছে দ্বিতীয়। মূলত অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা ও তাদের পরিবেশনার নাম্বার বিবেচনা করে চ্যাম্পিয়ন ও রানারআপ নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়

বিশ্বমিল উৎসবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক দল। ছবি : সংগৃহীত

জিন্দাল গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি ভারতের শীর্ষস্থানীয় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। ২০১৪ সাল থেকে তারা প্রতি বছর আয়োজন করে আসছে ‘বিশ্বমিল’ আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক উৎসব। তৃতীয়বারের মতো আয়োজিত এই উৎসবে ভারতের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশের ৫৮টি দল অংশ নেয়। বাংলাদেশ থেকে অংশগ্রহণ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়।

মুর্ছনা বুয়েটের সদস্যরা আনপ্লাকডে অংশগ্রহণ করে প্রথম হয়। মুর্ছনার শিল্পীরা হলেন অরণ্য, নাফি, মুগ্ধ, চয়ন, রিফাত ও দ্বীপ্ত। ইন্ডিয়ান সোলোতে অংশ নিয়ে প্রথম পুরস্কার জিতে নিয়েছেন বুয়েটের মুগ্ধ। ‘লেটার টু দ্য আনর্বন চাইল্ড’ শীর্ষক মঞ্চনাটক উপস্থাপন করে দ্বিতীয় পুরস্কার জিতেছে বুয়েট ড্রামা ক্লাব।

buet-team

বিশ্বমিল উৎসবে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) সাংস্কৃতিক দল। ছবি : সংগৃহীত

‘সর্বরোগের মহাচিকিৎসক’ শিরোনামের মূকাভিনয়ের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রথম হয়। এই প্রযোজনাটি রচনা ও নির্দেশনায় ছিলেন তরুণ মূকাভিনয়শিল্পী মীর লোকমান, এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন শাহরিয়ার শাওন, খায়রুল বাসার, ফরিদ উদ্দীন, মৌসুমী মৌ, মো. রায়হান বাসার ভুইয়া, সানোয়ারুল হক, সাইফুল্লাহ সাদেক ও মীর লোকমান। আবহ সংগীতে ছিলেন এসএম জুম্মান সাদিক, কারিগরী সহযোগিতায় ছিলেন ইসরাত জাহান, সাইফুল্লাহ মাহফুজ ও জেরিন মার্জান আশরাফি। ক্যামেরায় আলী আহসান ও আলোক প্রক্ষেপণে ছিলেন অতসী আমিন।

‘ইনভিজিবল লাইন’ শিরোনামের শর্টফিল্মে প্রথম হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাইফুল্লাহ মাহফুজ। মনোলগে প্রথম হয়েছেন অতসী আমিন ও দ্বিতীয় হয়েছেন এসএম জুম্মান সাদিক। ইন্ডিয়ান সোলোতে দ্বিতীয় হয়েছেন জুম্মান সাদিক এবং ওয়েস্টার্ন ডান্সে দ্বিতীয় হয়েছেন মীর লোকমান।

Comments

comments