ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ | ০৭ : ৩৪ মিনিট

11নানু চলে যাওয়ার এক বছর হয়ে গেল । কিন্তু আজও মনে হচ্ছে, এইতো কালকেই না আমাকে ফোন করে বলল, ‘লিয়া কবে বাড়ি আসবি, তোকে খুব দেখতে ইচ্ছে করছে’। সত্যি কথাগুলো মনে হলে নিজের অজান্তেই দু’চোখ দিয়ে অঝোড় ধারায় অশ্রু বইতে থাকে। এ অশ্রু বেদনার নয়, ভালোবাসার স্মৃতিময়।

সত্যি ভালোবাসার মানুষের প্রস্থান খুব সহজে মেনে নেওয়া যায় না। অবুঝ ভালোবাসাময় স্মৃতিগুলো বারংবার শুধু মনে করিয়ে দেয়। আমি আমার নানুকে খুব ভালোবাসি। তাই আজও মেনে নিতে পারিনি তার বিদায়। আজও তার স্মৃতিগুলো আমাকে নিয়ে যায় তার আলিঙ্গনে। মনে হয় এইতো সে আমার পাশে বসে আছে। খাবার নিয়ে আজও অপেক্ষা করছে আমার জন্য। বেঁচে আছে সেই ভালোবাসার মুহুর্তগুলো। কিন্তু, বেঁচে নেই সেই ভালোবাসার মানুষটা।

জানি আর কখনো দেখতে পাব না তোমাকে, জানি তোমার মুখে ‘লিয়া’ ডাকটি আর শুনতে পাব না, কিন্তু আজও আমার হৃদয়ের প্রতিটি শিরা-উপশিরা, ধমনীতে সেই চিরচেনা ডাক, সেই চিরচেনা কণ্ঠ। পৃথিবী থেকে হয়তো তুমি হারিয়ে গেছ চিরদিনের জন্য, কিন্তু আমার হৃদয়ে তুমি অমরণ হয়ে আছ আজীবনের মত। যার হাতের উপর হাত রেখে আমার বেড়ে ওঠা, আমি অসুস্থ হলে মায়ের চেয়ে যে বেশি অস্থির হয়ে যেত, আমাকে একনজর না দেখলে যে ছটফট করত, ভাবতে বড় অবাক লাগছে সে আমার কাছ থেকে আজ যোজন যোজন দূরে। চাইলে যাকে আমি ছুঁতে পারব না আর,চাইলেও যে আর কোনোদিন ধরা দিবে না আমার এই বেদনামধুর স্মৃতিময় আবেগের কাছে। তবু একটিবার আমি তাকে বলতে চাই-ভুলিনি তোমাকে, ভুলবও না কোনোদিন।
ভালো থেকো নানু,ভালো থেকো…

Comments

comments