ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ | ০৬ : ৩৯ মিনিট

April 11th, 2016

12গতকাল সোমবার বিকালে ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান নিয়ে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে ছায়ানট সভাপতি সন্‌জীদা খাতুন বলেন ‘পাকিস্তান আমলে আন্দোলন করতে আমরা ভয় পাইনি। মুক্তিযুদ্ধেও পাইনি। কিন্তু এখন ভয়ের কারণ ঘটছে। ছায়ানটের অনুষ্ঠানে বোমা হামলা হয়েছে। ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে। আমরা বিরোধিতার মুখোমুখি হচ্ছি। গোপন প্রতিপক্ষের সম্মুখীন হয়েছি। তাই যুদ্ধ করার সময় এখনো কাটেনি। আমরা গানে গানে তাই হানাহানি বন্ধ করে মানবতার কথা বলব।’

তিনি আরও জানান, ছায়ানটের বর্ষবরণের এবারের বিষয় মানবতা। গানে, কবিতায় মানবতার মর্মবাণী দর্শকদের সামনে তুলে ধরবেন শিল্পীরা।

সাংবাদিক সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ছায়ানটের সহসভাপতি সারওয়ার আলী ও সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আনাম।

সারওয়ার আলী বলেন, ‘পাকিস্তানি শাসকেরা বাঙালিত্বের যে সংস্কৃতি, তা ধ্বংস করতে চেয়েছিল। সেই পরিস্থিতির মোকাবিলায় আমরা আন্দোলন করেছি, মুক্তিযুদ্ধ করে বাংলাদেশ পেয়েছি। কিন্তু এখন সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নতি হলেও সর্বগ্রাসী লোভের বশবর্তী হয়ে, ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে কিছু মানুষ মনুষ্যত্বকে অবমাননা করছে। তাদের বিপরীতে দাঁড়িয়ে মানবতার শক্তি প্রতিটি হৃদয়ে যাতে জাগ্রত থাকে, তার জন্য সব সংস্কৃতিকর্মীকে কাজ করতে হবে। সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে মানবিক সমাজ গড়ে তোলার ভিত্তি পাবে।’

প্রায় দেড় শ শিল্পীর অংশগ্রহণে এ অনুষ্ঠান শুরু হবে পহেলা বৈশাখ সকাল সোয়া ছয়টায়। সন্‌জীদা খাতুনের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে এ অনুষ্ঠান শেষ হবে সকাল সাড়ে আটটায়। এবারের আয়োজন ১৫টি একক গান, ১২টি সম্মেলক গান, ৩টি আবৃত্তি ও পাঠ দিয়ে সাজানো হয়েছে।

ছায়ানটের শিল্পী-কর্মীদের জন্য নির্দিষ্ট বটমূল-সংলগ্ন সামান্য কিছু জায়গা ছাড়া গোটা অঙ্গনই থাকছে সবার জন্য উন্মুক্ত। এবারও অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করছে বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতার। ইচ্ছে হলে যেকোনো চ্যানেল বিনা মূল্যে এ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করতে পারবে বলে সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়। এ ছাড়া গোটা অনুষ্ঠান সরাসরি দেখা যাবে ছায়ানটের ওয়েবসাইট www.chhayanaut.org, এবং www.maatrik.tv এই ঠিকানায়। বিজ্ঞপ্তি

 

 

Comments

comments